30 Joishtho 1431 বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ »
Home / প্রতিবেদন / ভূয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ ও অর্থ আত্মসাৎ নওগাঁর আত্রাইয়ে এক কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা

ভূয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ ও অর্থ আত্মসাৎ নওগাঁর আত্রাইয়ে এক কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা

এনবিএন ডেক্স: নওগাঁর আত্রাইয়ে প্রতারণামূলকভাবে ভূয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ ও অবৈধ দলিল তৈরি করে সরকারি রাজস্ব এবং প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাৎ করায় এক কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় চলছে। মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সিংসাড়া কছির উদ্দিন দেওয়ান মেমোরিয়াল হাইস্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ ফরিদুল ইসলাম রতন অসৎ উদ্দেশে প্রতারণামূলকভাবে ৪ জন ভূয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ ও অবৈধ দলিল তৈরি করে সরকারি রাজস্ব এবং প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাৎ করেন। তিনি আব্দুর রহিম সরদারকে ইতিহাস, এনামূল হককে অর্থ ও বাণিজ্যিক ভূগোল বিষয়ের প্রভাষক, ফিরোজ সারোয়ারকে স্কুল শাখার সহকারি শিক্ষক এবং বাবর আলীকে অফিস সহকারী হিসাবে নিয়োগ সংক্রান্ত কোন রকম কাগজপত্র সভাপতির কাছে দাখিল করেননি। এছাড়া তিনি জালিয়াতি করে রেজুলেশন খাতায় ওই ৪ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর যোগদানের তারিখ ২০১১ সালের ১ আগষ্ট দেখিয়ে গত ২ জানুয়ারি থেকে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর নেন। অধ্যক্ষ ফরিদুল ইসলাম রতন রেজুলেশন খাতা প্রতিষ্ঠানে সংরক্ষন না করে নিজ হেফাজতে রেখেছেন। বারবার তাগিদ দেওয়া সত্বেও ৪ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগ সংক্রান্ত তথ্য/ উপাত্ত যোগার করতে অধ্যক্ষ সম্পূর্ণ ব্যর্থ হন। অধ্যক্ষের বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে সহকারী অধ্যাপক এসএম রেজাউল হক ২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠানের তৎকালীন সভাপতি আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ করেন। বিষয়টি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে মর্মে একটি তদন্ত প্রতিদেন দাখিল করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। সভাপতির স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ২০১২ সালের ২৩ জুন হিন্দু ছাত্রের ভূয়া তালিকা তৈরি করে উপবৃত্তির ৭৮ হাজার টাকা, গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে শিক্ষক এবং কর্মচারীর বেতন-ভাতা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করেন। অধ্যক্ষের এসব জালিয়াতি ও প্রতারণামূলক কর্মকান্ড সভাপতির নজরে আসে। প্রতিষ্ঠানের সভাপতি উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দিন মৃধার ছেলে মো. জাহেদুল হক বাদি হয়ে গত ৩০ জুন নওগাঁ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অসৎ উদ্দেশে প্রতারণামূলকভাবে ৪ জন ভূয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ ও অবৈধ দলিল তৈরি করে সরকারি রাজস্ব এবং প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং- ০৩সি/২০১৪)। আদালতের বিচারক মামলাটি এজাহার হিসেবে গণ্য ও রেকর্ড পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ প্রদান করেন।
অধ্যক্ষ ফরিদুল ইসলাম রতন জানান, আমার  বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানের সভাপতির আনিত অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। কিছু স্বার্থন্বেশী শিক্ষক/ কর্মচারীর যোগসাজসে আমাকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে কলেজের শূন্য পদে নিয়োগ বাণিজ্যের জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে অযথা হয়রানী করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে আত্রাই থানার ওসি আব্দুল লতিফ খান জানান, আদালতের নির্দেশনায় মামলাটি থানায় রেকর্ড করা হয়েছে এবং তদন্ত চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। #

আরও পড়ুন...

বে-সরকারী সংস্থার উদ্যোগে নওগাঁয় স্বামী কর্তৃক অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু সম্পা এখন সুস্থ্য

এনবিএন ডেক্স : স্বামী কর্তৃক অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু সম্পাকে দীর্ঘদিন ঢাকায় বার্ণ হাসপাতালে চিকিৎসার পর সুস্থ্য …