1 Poush 1426 বঙ্গাব্দ সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ »
Home / প্রতিবেদন / পুলিশের তিন কর্মকর্তার যোগসাজসে মিথ্যা ধর্ষন মামলায় সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

পুলিশের তিন কর্মকর্তার যোগসাজসে মিথ্যা ধর্ষন মামলায় সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

এনবিএন ডেক্স: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আব্বাস উদ্দিন, গোমস্তাপুর থানার ওসি ফিরোজ আহম্মেদ এবং এসআই মমিনুলের যোগসাজসে অন্যায়ভাবে ধর্ষন ও চাঁদাবাজির মিথ্যা মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবীতে গতকাল সোমবার নওগাঁ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বরাষ্টমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও রসুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক।
স্মারকলিপিতে জানা যায়, গত ৪ আগষ্ট নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার পাশ্ববর্তী চাপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার পারবত্বীপুর ইউনিয়নের জিনারপুর মৌজায় তার ভগ্নিপতি মনিরুল ইসলামের সাথে বিচিত্রা তিরকী স্বামী দিমল সাং জিনারপুর উপজেলা গোমস্তাপুর জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জের এর জমিজমা সংক্রান্ত পুর্ব শত্রুতার জের ধরে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ বাধে। এতে উভয়ের মধ্যে ধাক্কাধাক্কির মত সামান্য ঘটনাও ঘটে। এরই জের ধরে বিচিত্রা তিরকীকে দিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও গোমস্তাপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আব্বাস উদ্দিনের নেতৃত্বে গোমস্তাপুর থানার ওসি ফিরোজ আহম্মেদ এবং এসআই মমিনুলের যোগসাজসে অন্যায়ভাবে তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষন ও চাঁদাদাবির মত দুইটি মিথ্যা মামলা দায়ের করিয়ে নেয়। প্রকৃত ঘটনা আড়াল করে গোমস্তাপুর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার আব্বাস উদ্দিনের নেতৃত্বে গোমস্তাপুর থানার ওসি ফিরোজ আহম্মেদ এবং এসআই মমিনুল এসব মিথ্যা মামলা দিয়ে তিনিসহ তার দুই ভাই ও চাচা এবং এলাকার শান্তিপ্রিয় ১৫ থেকে ২০জন লোককে হয়রানী ছাড়াও ৪জনকে আটক করে নির্যাতন করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।
বিচিত্রা তিরকীর ধর্ষন বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর হাসপাতালে বোর্ড গঠন করে ডাঃ সালমা আখতার জাহান পপি বোর্ডের সভাপতি একটি সনদপত্র প্রদান করেছেন। যেখানে উল্লেখ করা হয়েছে যে বিচিত্রা তিরকীর কোনরুপ ধর্ষনের আলামত পাওয়া যায়নি। এছাড়া যে ঘটনাস্থল দেখানো হয়েছে সেখানে জনতা ব্যাংকের পরবত্তীপুর শাখার ব্যবস্থাপক তৈয়বুর রহমানও এরকম কোন ঘটনা সকাল থেকে সন্ধ্যা পযর্ন্ত অত্র এলাকায় ঘটেনি বলে জানিয়েছেন। এছাড়া পরবত্তীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বসা ওষুধের দোকান মালিক ও পরবত্তীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমরান আলীও একমত পোষন করেছেন। এমতাবস্থায় তিনি এলাকাবাসির পক্ষ থেকে মিথ্যা মামলা সুষ্ট তদন্ত করে গোমস্তাপুর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার আব্বাস উদ্দিন, গোমস্তাপুর থানার ওসি ফিরোজ আহম্মেদ এবং এসআই মমিনুলের অপসারনের জোর দাবি জানিয়েছেন প্রদত্ত স্মারকলিপিতে।

আরও পড়ুন...

নওগাঁয় ট্রাকের চাকায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য নিহত

এনবিএন ডেক্স: নওগাঁ সদর উপজেলার নওগাঁ-মহাদেবপুর মহাসড়কের হাঁপানিয়া নামক স্থানে ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়ে এক …